মূলপাতা বই একুশ শতকের এজেন্ডা

ভূমিকা
আমার তিরিশ বছরের সাংবাদিকতার এক ফসল হিসেবে কয়েক হাজার প্রবন্ধ নিবন্ধ ছড়িয়ে আছে সংবাদপত্রের পাতায়। এর বাইরে রয়েছে বিভিন্ন সেমিনারে পড়া অনেক প্রবন্ধ। এ বিরাট সংখ্যার খুব অল্পই আমার সংগ্রহে আছে। সংগ্রহ হতে কয়েকটি আমি এ প্রবন্ধ সংকলনের জন্য বাছাই করেছি। বাছাইয়ের ক্ষেত্রে বর্তমান সময়ের জরুরী প্রয়োজনকে আমি অগ্রাধিকার দিয়েছি। আজকের দুনিয়ায় বিশ্বশান্তিসহ রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সমস্যাকে নিয়ন্ত্রণ করছে মতবাদিক নীতি দর্শন। ঠান্ডা যুদ্ধের পর যার মৃত্যু ঘটলো বলে আমরা মনে করেছিলাম, সেই মতবাদিক দ্বন্ধই আজ আমাদের সামনে এসে দাঁড়িয়েছে। পরিবর্তন ঘটেছে শুধু পাত্রের। নব্বই পূর্ব দ্বন্ধটা ছিল পুঁজিবাদী বস্তুবাদের সাথে কমিউনিস্ট বস্তুবাদের। আর এখন দ্বন্ধটা পুঁজিবাদী বস্তুবাদের সাথে আদর্শবাদের। এ বিষয়ক আমার অনেকগুলো লেখা এ বইতে আমি নিয়ে এসেছি। এর বাইরে যে লেখাগুলো, তার অধিকাংশই জাতীয় ইতিহাসভিত্তিক, যার সাথে আমাদের নতুন প্রজন্মের পরিচয় খুবই জরুরী। সময়ের প্রয়োজনের সাথে সংযুক্ত অন্য বিষয়ক দু/একটি প্রবন্ধও রয়েছে।

প্রবন্ধগুলোর অধিকাংশই একুশ শতক শুরুর আগের। তবু বইটির নামকরণ আমি করেছি ‘একুশ শতকের এজেন্ডা’। তার কারণ কম্যুনিজম পতনের পর নব্বইয়ের দশকে একুশ শতকের এজেন্ডা চূড়ান্ত হয়ে গেছে। নাইন ইলেভেন এর উপর লেখা প্রবন্ধকে বইয়ের প্রথম আর্টিকেল করেছি এজন্য যে, একুশ শতকের প্রথম বছরে সংঘটিত নাইন ইলেভেনের ঘটনা একুশ শতক এজেন্ডার দ্বার উদ্বোধক।

বইটি প্রকাশে আগ্রহী হওয়ায় মিজান পাবলিশার্সের কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

আবুল আসাদ

২৬ জানুয়ারি, ২০০৫


পিডিএফ লোড হতে একটু সময় লাগতে পারে। নতুন উইন্ডোতে খুলতে এখানে ক্লিক করুন।




দুঃখিত, এই বইটির কোন অডিও যুক্ত করা হয়নি